লামায় পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণ বসবাসরতদের সরিয়ে নিতে প্রশাসনের অভিযান

মো. নুরুল করিম আরমান, লামা বান্দরবান প্রতিনিধি
প্রকাশ: রবিবার, ৭ জুলাই ২০১৯ সময়- ১০:৩৪ অপরাহ্ন

বান্দরবান : লামা উপজেলায় পাহাড়ের চূড়া, পাদদেশ ও কোলঘেষে ঝুঁকিপূর্ণ বসবাসরত লোকজনকে নিরাপদ স্থানে সরে যেতে ও সচেতনতা বৃদ্ধিতে অভিযান শুরু হয়েছে।

রবিবার সকাল থেকে সহকারি কমিশনার (ভূমি) ইশরাত সিদ্দিকার নেতৃত্বে এ অভিযান শুরু হয়। এসমময় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মজনুর রহমান, পৌরসভার কাউন্সিলর মো. রফিক, মো. সাইফুদ্দিন, থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আয়াত উল্লাহ সহ প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। পৌরসভা এলাকার হাসপাতাল পাড়া, চেয়ারম্যান পাড়া, কাটা পাহাড়, নয়া পাড়া, মিশন এলাকা, রাজবাড়ী, লাইনঝিরি, হরিণঝিরি, শিলেরতুয়া এলাকায় এই অভিযান চালানো হয়।

সূত্রে জানা যায়, উপজেলার একটি পৌরসভা ও ৭টি ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার পরিবারের ২০হাজার মানুষ পাহাড়ের চূড়া, পাদ দেশে, কোলঘেষে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাস করছে। গত তিন দিন ধরে টানা বর্ষণের ফলে বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসের আশঙ্কা দেখা দেয়। এ কারনে ঝুঁকিপূর্ন বসবাসকারীদের সরে যেতে শনিবার সকাল থেকে মাইকিং শুরু করে উপজেলা প্রশাসন। পাশাপাশি পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ন বসবাসকারীদের দ্রুত নিরাপদ স্থানে সরিয়ে আনতে উপজেলায় ৫৫টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে।

এদিকে পাহাড়ের পাদদেশে আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে ত্রান তৎপরতা চালানোর জন্য প্রস্তুতি গ্রহন করার পাশাপাশি খোলা হয় কন্ট্রোল রুম।

অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইশরাত সিদ্দিকা বলেন, একইভাবে উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে অভিযান চালানো হবে।

বান্দরবানের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ দাউদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানায়, পাহাড়ের পদদেশে সবাসকারীদের সরিয়ে আনতে আমরা আশ্রয় কেন্দ্র খোলার পাশাপাশি ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের নেতৃত্বে আমরা ঝুঁকিপূর্ন এলাকায় বিশেষ টিম পাঠিয়েছি।

মৈত্রী/এফকেএ/এএ

Banner