স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতির পর সাংবাদিকের উপর হামলা

স্টাফ রিপোর্টার

অনিয়মের সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে রাজধানীর মুগদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে বেসরকারি টেলিভিশন আরটিভির দুই সাংবাদিক মারধরের শিকার হয়েছেন। গতকাল বেলা ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে মুগদা থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন ওই দুই সাংবাদিক। মারধরের শিকার সাংবাদিকরা হলেন আরটিভির প্রতিবেদক সোহেল রানা ও ক্যামেরাপারসন নাজমুল হোসেন সায়মন।

এ ঘটনায় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেকের নির্দেশে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছেন। এরই মধ্যে হাসপাতাল চত্বরে সাংবাদিকদের মারধরের একটি ভিডিওচিত্র সাামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।


মারধরের শিকার সাংবাদিকরা জানান, সংবাদ সংগ্রহে গেলে প্রথমে হাসপাতালের নিরাপত্তারক্ষীরা পরিচালকের অনুমতি নিতে বলেন। পরে পরিচালকের কক্ষে গেলে তিনি সাংবাদিকদের নিয়ে বিষোদগার করে বলেন, ‘সাংবাদিকদের কারণেই প্রধানমন্ত্রী ডাক্তারদের ওপর কড়াকড়ি করেছেন। হাসপাতালে কোনো সাংবাদিক প্রবেশ করা যাবে না। ’ এরপর তারা রাস্তায় রোগীদের বক্তব্য নিতে গেলে হাসপাতালের কর্মীরা বাধা দেন এবং ক্যামেরার লেন্স ভেঙে ফেলেন। বাগ্বিত ার একপর্যায়ে প্রতিবেদক সোহেল রানার ওপর হামলা করে দুর্বৃত্তরা। পরে তারা মুগদা থানায় জিডি করেন। জিডিতে উল্লেখ করা হয়, সকাল ১০টার দিকে হাসপাতালের পরিচালকের অনুমতি না পেলে ওয়ার্ডবয় আসিফসহ (২৭) অজ্ঞাত পরিচয় আরও কয়েকজন তাদের হাসপাতাল থেকে বের করে দেন। এরপর হাসপাতালের সীমানাপ্রচীরের বাইরে এসে চিকিৎসাসেবা নিতে আসা সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলার সময় আসিফ ক্যামেরা ও মাইক্রোফোন ছিনিয়ে নিতে চান এবং আসিফসহ অজ্ঞাত কয়েকজন মারধর শুরু করেন। একপর্যায়ে হামলাকারীরা ক্যামেরা ধরে টানাটানি করে ক্যামেরার লেন্স, লেন্স হুড, ক্যামেরার আলট্রা লাইটের ব্যাটারি ভেঙে ফেলেন।

সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সভাপতি আবু জাফর সূর্য ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী অবিলম্বে হামলাকারীদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। এ ছাড়া ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিও (ডিআরইউ) নিন্দা জানায়। মুগদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রলয় কুমার সাহা জানান, হামলাকারীদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে।