চেক ভাষায় অনুদিত তৌফিক-ই-ইলাহীর বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করলেন প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ তাঁর বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরীর চেক ভাষায় অনুদিত ‘চ্যারিয়ট অব লাইফ’ বইয়ের মোড়ক উম্মোচন করেছেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সকালে তাঁর সরকারী বাসভবন গণভবনে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন।
‘চ্যারিয়ট অব লাইফ’ বইটি ৩৭ বছর আগে লেখকের যাপিত দুই জীবনের আত্মজীবনীমূলক বই।
জাতীয় স্বাধীনতা দিবস পুরষ্কার প্রাপ্ত এবং সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বইটি এবং লেখক সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে বলেন, ‘ চ্যারিয়ট অব লাইফ বইটিতে ঘটনার সঙ্গে আমাদের মুক্তিযুদ্ধকে চিত্তাকর্ষকভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে, যেগুলো অনেক পরে ঘটেছিল—–এটি সুলিখিত– সাহিত্যের চমৎকার অংশ— শেষ অংশ পদ্যাকারে লেখা–এটি একটি কবিতা।’


লেখক তৌফিক-ই-ইলাহী ব্রিটিশ ভারতে জন্মগ্রহন করেন, পূর্ব পাকিস্তানে বেড়ে উঠেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং লীডস ইউনিভার্সিটিতে লেখাপড়া করেন। হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি ডক্টরেট ডিগ্রী অর্জন করেন।
তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। পরে তিনি পাকিস্তান সিভিল সার্ভিসে যোগদান করেন এবং ১৯৭১ সালে চাকুরী ছেড়ে তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধে যোগদান করেন।
তৌফিক-ই-ইলাহী বাংলাদেশ প্রতিরক্ষা বাহিনীতে কমিশন লাভ করেন এবং ৮ নম্বর সেক্টরের সাব সেক্টর কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ অবদান রাখায় তিনি বীর বিক্রম খেতাব লাভ করেন।

তিনি স্বাধীনতার ঘোষনার অন্যতম সংগঠক ছিলেন এবং ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মুজিবনগরে বাংলাদেশ সরকারের শপথ গ্রহণ করেন। সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন শেষে তিনি ২০০২ সালে অবসরে যান এবং ২০০৯ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। তিনি এখনও এ পদে দায়িত্ব পালন করছেন।
চ্যারিয়ট অব লাইফ স্বাধীনতার ওপর লেখা তার প্রথম বই।

‘চ্যারিয়ট অব লাইফ’ বইটি ভারতের পেঙ্গুইন রেনডম হাউজ থেকে প্রকাশিত হয়েছে। একই সঙ্গে বইটির চেক ভাষায় একটি অনুবাদও প্রকাশিত হয়েছে। পর্দার অন্তরালে কী ঘটেছিল সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্তাবধায়ক সরকার আমলে, পেছন থেকে কারা ছিলেন সেই সরকারের সঙ্গে, তারা ক্ষমতার যে দর্প দেখিয়েছিলেন তার বিবরণও উঠে এসেছে এই বইয়ে। মুক্তিযোদ্ধা তৌফিক-ই-ইলাহী তার বইয়ে স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাগুলোর পাশাপাশি ২০০৭-০৮ ’র সেই অনিশ্চিত সময়ের একটি দৃশ্যকল্প রেখেছেন তরুন প্রজন্মের সামনে।
২০১৮ সালের মার্চে বের হয় শ্রাবণ প্রকাশনীর চ্যারিয়ট অব লাইফ। এরপর ভারতের পেঙ্গুইন থেকে তা প্রকাশিত হলো।