স্থানীয়সরকার , পল্লীউন্নায়ন ও সমবায় মন্ত্রীর সাথে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টরের সৌজন্য সাক্ষাৎ

ঢাকা, লিগ্যাল ডেস্ক : বাংলাদেশে নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর কিমিও ফ্যান স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের সাথে সচিবালয়ে তার অফিস কক্ষে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।
বিশ্বব্যাংক সাউথ এশিয়া অঞ্চলের রিজিওনাল ইনটিরেশন এন্ড পার্টনারশিপস-এর পরিচালক রবার্ট জে. স্যাম, বাংলাদেশে কান্ট্রি প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর শিরিন জুমা, প্রোগ্রাম লিডার সঞ্জয় শ্রীবাস্তব, প্রোগ্রাম লিডার ক্রিস্টিয়ান আইগ্যান জ্যুচ্চি এবং স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. মাহবুব হোসেন এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠককালে মন্ত্রী ফ্যানকে ধন্যবাদ জানিয়ে আশা প্রকাশ করেন, বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের সাথে অংশীদারিত্বমূলক কাজে তাদের ভূমিকা অব্যাহত রাখবে।
তিনি বলেন, আমাদের নির্বাচনী ইশতেহার এবং জনগণের প্রতি দায়বদ্ধতা আছে। এজন্য তিনি বাংলাদেশে জনকল্যাণমূলক কাজে বিশ্বব্যাংককে আরও ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।
কান্ট্রি ডিরেক্টর কিমিও ফ্যান বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যার দেশ বাংলাদেশ, যার আয়তন লুইজিয়ানা স্টেটের চেয়েও ছোট। অথচ বাংলাদেশ ক্রমাগতভাবে যে উন্নয়ন করছে তা খুবই সন্তোষজনক।

তিনি বাংলাদেশে বিশ্বব্যাংকের চলমান প্রকল্প ও কার্যাবলী সম্পর্কে মন্ত্রীকে অবহিত করেন। তিনি জানান, বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের বৃহত্তম উন্নয়ন অংশীদার। স্বাধীনতার পর থেকে বাংলাদেশ যত বৈদেশিক সাহায্য পেয়েছে তার শতকরা ২৯ ভাগ বিশ্বব্যাংকের। বিশ্বব্যাংক তাদের প্রতিশ্রুত ২৮.৮৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ১৯.৭৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার জুন, ২০১৮ সময় পর্যন্ত প্রদান করেছে। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের ১৪ টি প্রকল্পে বিশ্ব ব্যাংক বর্তমানে কাজ করছে বলে মন্ত্রীকে অবহিত করেন।


মন্ত্রী মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর উপর গণহত্যা ও বর্বরতার কথা উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশ এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মহানুভবতায় তাদের জন্য আমরা আশ্রয়কেন্দ্র, রাস্তাঘাট নির্মাণ ও অন্যান্য সহযোগিতা করে যাচ্ছি। রোহিঙ্গা ইস্যুতে সহযোগিতার জন্য মন্ত্রী বিশ্বব্যাংক এর প্রশংসা করেন এবং এ সমস্যার স্থায়ী সমাধানে সহযোগিতা কামনা করেন।