সালমান মুক্তাদিরকে অনলাইনের ‘রাস্তাঘাট পরিষ্কার’ রাখতে বলা হয়েছে

একটি মিউজিক ভিডিও প্রকাশের জেরে ‘অশ্লীলতা’র অভিযোগে ডেকে এনে সতর্ক করা হয়েছে জনপ্রিয় ইউটিউবার সালমান মুক্তাদিরকে। মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটে ডেকে নিয়ে তাকে সতর্ক করা হয়েছে।

সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার তার ভেরিফায়েড ফেসবুক আইডি থেকে দেওয়া স্ট্যাটাসে সালমান মুক্তাদিরের বর্তমান অবস্থান জানতে চান।

এ বিষয়ে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘ওকে (সালমান মুক্তাদির) ডেকে এনে সতর্ক করা হয়েছে। অনলাইনের রাস্তাঘাট পরিষ্কার রাখতে বলা হয়েছে। তার মাধ্যমে অনলাইনে কোনও আবর্জনা তৈরি হলে তাকে গ্রেফতার করা হবে বলেও তাকে জানানো হয়েছে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘কয়েকদিন আগে আমরা (আইনশৃঙ্খলা বাহিনী) সানাই মাহবুব নামের একজনকে ডেকে এনে সতর্ক করেছি।’

এ অভিযান চলবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশের মানুষকে নিরাপদ ইন্টারনেট সেবা দেওয়া আমাদের প্রধান দায়িত্ব। আমরা জনগণকে বিশুদ্ধ কনটেন্ট দিতে চাই। এতে যারা বাধা হয়ে দাঁড়াবে, তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।’

মন্ত্রী জানান, মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ইউনিট থেকে সালমান মুক্তাদিরকে ডেকে পাঠানো হয়। পরে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সালমানকে তার ‘সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ড’ নিয়ে সতর্ক করেছেন। সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ইউনিট কর্তৃপক্ষ সালমানের ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেজ থেকে তার ‘অগ্রহণযোগ্য’ কনটেন্ট মুছে ফেলতে বলেছেন এবং ওই ধরনের কাজ চালিয়ে গেলে তাকে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে বলেও সতর্ক করেছেন।

প্রসঙ্গতএ ছাড়া, এ মাসের ৬ তারিখে সালমান ‘অভদ্র প্রেমে’র টিজার প্রকাশ করেন।  ৯ তারিখ মূল মিউজিক ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়। ভিডিওটি আপ করার পরপরই সালমানের সমালোচনা শুরু হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে; শুরু হয় বিতর্ক। সালমানের বিরুদ্ধে ‘অশ্লীলতা’র অভিযোগও আনা হয়। এর আগে সালমানের ‘ব্যক্তি জীবনের বিভিন্ন সময়ের ভিডিও’ নিয়েও সমালোচনা রয়েছে।