বরিশাল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ বিল্ডিং কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে

বরিশাল প্রতিনিধি : জেলার সদর উপজেলায় প্রায় ৪ হাজার ৫শ’ কোটি টাকা ব্যয়ে বরিশাল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ-এর ১৬টি স্কীমের কাজ সম্পন্ন। এতে গড় অগ্রগতি হিসেব অনুযায়ী প্রায় ৯০ শতাংশ কাজ হয়েছে বলে জানায় জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর।
জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট সূত্র আরো জানায়, বিভাগের শিক্ষা ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে বর্তমান সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর শুধু শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর যে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে।
বরিশাল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, এ পর্যন্ত ১৬টি স্কীমের মাধ্যমে সর্বমোট যার প্রকল্প ব্যয় ছিল প্রায় ৫৬ কোটি ৪৯ লাখ ৩২ হাজার টাকা, প্রকল্প বাস্তবায়নে অগ্রগতি প্রায় ৮৬ শতাংশ।
নির্বাচিত মাধ্যমিক বিদ্যালয় সমূহের ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নে, (৩ হাজার স্কুল) জুন ২০১৮ সাল পর্যন্ত ৭৫টি স্কীমের মাধ্যমে সর্বমোট যার প্রকল্প ব্যয় ছিল প্রায় ৪২ কোটি ৩৪ লাখ ৮১ হাজার টাকা, প্রকল্প বাস্তবায়নে অগ্রগতি প্রায় ৯০ শতাংশ।
এছাড়াও নির্বাচিত মাধ্যমিক বিদ্যালয় সমূহের ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নে আসবাপত্র সরবরাহ ২ কোটি ৫৫ লাখ ২৫ হাজার টাকা। তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় নির্বাচিত শিক্ষার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে নির্বাচিত বেসরকারী কলেজ সমূহের উন্নয়নে, জুন ২০১৯ সাল পর্যন্ত ৭৩ টি স্কীমের মাধ্যমে সর্বমোট যার প্রকল্প ব্যয় ছিল প্রায় ৫১ কোটি ১৮ লাখ ৬৭ হাজার টাকা, প্রকল্প বাস্তবায়নে অগ্রগতি প্রায় ৬৫ শতাংশ। এছাড়াও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় কলেজ সমূহের উন্নয়ন’র মাটি পরীক্ষা প্রকল্প ১০ লাখ ৭৮ হাজার টাকা।
সরকারী বিদ্যালয় বিহীন ৩১৫ উপজেলা সদরে নির্বাচিত বেসরকারী বিদ্যালয় সমূহকে মডেল স্কুলে রূপান্তর, জুন ২০১৬ সাল পর্যন্ত ১৩ টি স্কীমের মাধ্যমে সর্বমোট যার প্রকল্প ব্যয় ছিল প্রায় ১৩ কোটি ৬১ লাখ ৮ হাজার টাকা, প্রকল্প বাস্তবায়নে অগ্রগতি ১’শ ভাগ। নির্বাচিত বেসরকারী মাদ্রাসা সমূহের একাডেমিক ভবন উন্নয়ন, জুন ২০১৮ সাল পর্যন্ত ২৭ টি স্কীমের মাধ্যমে সর্বমোট যার প্রকল্প ব্যয় ছিল প্রায় ১৫ কোটি ৮৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা, প্রকল্প বাস্তবায়নে অগ্রগতি প্রায় ৯৯ শতাংশ।
ইনহ্যান্সিং দি মাদ্রাসা লানিং ইনভাওরমেন্ট প্রজেক্ট-ইন-বাংলাদেশ জুন ২০১৮ সাল পর্যন্ত ৪ টি স্কীমের মাধ্যমে সর্বমোট যার প্রকল্প ব্যয় ছিল প্রায় ৪ কোটি ৫৮ লাখ ৬৮ হাজার টাকা, প্রকল্প বাস্তবায়নে অগ্রগতি প্রায় ৮৫ শতাংশ। পোষ্ট গ্রাজুয়েট কলেজ স্থাপন শীর্ষক প্রকল্প জুন ২০১৯ সাল পর্যন্ত ৬ টি স্কীমের মাধ্যমে সর্বমোট যার প্রকল্প ব্যয় ছিল প্রায় ১৩ কোটি ৯৩ লাখ ৫৮ হাজার টাকা, প্রকল্প বাস্তবায়নে অগ্রগতি প্রায় ৬৫ শতাংশ।
সূত্র জানায়, অনুন্নয়ন বাজেটের আওতায় অন্যান্য ভবন ও অবকাঠমো (কোড নং ৭০১৬) খাতের অধিনে সরকারী ও বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের নতুন ভবন নির্মাণ শীর্ষক প্রকল্প, জুন ২০১৯ সাল পর্যন্ত ১’শ ১১ টি স্কীমের মাধ্যমে সর্বমোট যার প্রকল্প ব্যয় ছিল প্রায় ২৩ কোটি ১৩ লাখ ৬৪ হাজার টাকা, প্রকল্প বাস্তবায়নে অগ্রগতি প্রায় ৫৫ শতাংশ এবং সিলেট, বরিশাল ও খুলনা মহানগরীতে ৭টি সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয় শীর্ষক প্রকল্প, চলমান, ৮ টি স্কীমের মাধ্যমে সর্বমোট যার প্রকল্প ব্যয় ছিল প্রায় ৩ কোটি ২৫ লাখ টাকা, প্রকল্প বাস্তবায়নে অগ্রগতি প্রায় ৭৪ শতাংশ।
এব্যপারে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী সমির চন্দ্র রজক দাস জানান, বিগত দিনগুলোতে বরিশাল অঞ্চলের আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্থায় তেমন কোন উন্নয়ন হয়নি। বর্তমান সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পর শিক্ষাক্ষেত্রে উন্নয়নের উদ্যেগ গ্রহণ করায়, আনুপাতিক হারে ব্যাপক উন্নয়ন করা সম্ভব হয়েছে।