নগদের দাবী ক্যাশ আউট খরচ ৯.৯৯ টাকা, আসলে কত?

এক অংকে ক্যাশআউট খরচ নামিয়ে আনার চোখ ধাঁধানো বিজ্ঞাপনের আড়ালে প্রকৃতপক্ষে তার চেয়ে বেশি অর্থ কেটে নিয়ে গ্রাহকদের প্রতারিত এবং বিভ্রান্ত করছে মোবাইলে অর্থ লেনদেনের সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান নগদ।

গত ১লা অক্টোবর ২০২০ প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে ঢাকঢোল পিটিয়ে ক্যাশআউট খরচ এক অংকে নামিয়ে আনার ঘোষণা দেয়া হয়।

তবে বাস্তবতা, ঘোষণার পাশে ছোট্ট একটি তারকা চিহ্ন দিয়ে নানান শর্ত রেখে আসল সত্যকে আড়াল করার বিজ্ঞাপন কৌশল ব্যবহার করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

বড় সংখ্যাকে কম করে দেখাতে খন্ডিত তথ্য দেখানোর কৌশল ব্যবহার করেছে নগদ। বিজ্ঞাপনে জোর দিয়ে প্রচার করা ৯.৯৯ টাকার ক্যাশ আউট অফারটি প্রকৃতপক্ষে ভ্যাট ছাড়া। ভ্যাট সহ ইউএসএসডি দিয়ে ক্যাশআউটে গ্রাহককে দিতে হচ্ছে ১৪.৯৪ টাকা আর অ্যাপে ১১.৪৯ টাকা যার কোনটাই এক অংকের না।

তাদের ওয়েবসাইটেও এই তথ্যটি দেয়া আছে। এর পরেও আছে আরো শর্তের বেড়াজাল। একজন গ্রাহক ২১০০ টাকা বা তার বেশী ক্যাশআউট করলেই কেবল তার জন্য এই অফারটি প্রযোজ্য হবে। ২১০০ টাকার কম ক্যাশ আউটে গ্রাহকের খরচ আগের মতই অ্যাপে ১৭.৫০ টাকা এবং ইউএসএসডিতে ১৮.৫০ টাকা থাকছে। এদিকে মোবাইল আর্থিক সেবায় গ্রাহকের লেনদেনের তথ্য বলছে মাত্র ২০ থেকে ৩০ শতাংশ গ্রাহক ২১০০ টাকার বেশি পরিমানের টাকা ক্যাশআউট করে থাকেন। অথাৎ, প্রায় ৭০ ভাগ গ্রাহক যারা মূলত: নি¤œ আয়ের তারাই এই সেবার বাইরে থাকছেন। তাই ঢাকঢোল পিটিয়ে ক্যাশ আউট খরচ এক অংকে নামিয়ে আনার ঘোষণাটি এক ধরণের ধাপ্পাবাজি, বলছেন গ্রাহকরা।

মোবাইলে লেনদেন সেবা ব্যবহার করা অধিকাংশ গরীব মানুষ, শিক্ষার্থী, শ্রমিক সহ প্রান্তিক ও সাধারণ গ্রাহকদের বাদ রেখে কৌশলে এই অফারটি নির্ধারণ করেছে নগদ যেন তাদের ব্যবসায়িক লাভ না কমে আবার প্রচারেও থাকা যায়। তাছাড়া প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষ্যে অফার ঘোষণা করে এধরনের শর্তের বেড়াজালে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করাটা কতোটা নৈতিক, এই প্রশ্ন রেখেছেন অনেকেই।