বিফলে গেল ইমামের সেঞ্চুরি বৃষ্টি আইনে জিতলো দক্ষিণ আফ্রিকা

সেঞ্চুরিয়ান, লিগ্যালভয়েস : পাকিস্তান ওপেনার ইমাম উল হকের সেঞ্চুরি বিফল করে বৃষ্টি আইনে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডে জিতলো স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা। ১৩ রানের জয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়েও গেল প্রোটিয়ারা।
সেঞ্চুরিয়ানে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং বেছে নেয় পাকিস্তান। দলীয় ৪ রানে ওপেনার ফখর জামানকে হারালেও দলের বড় স্কোরের পথ তৈরি করেছে ইমাম ও বাবর আজম। ইমাম ওয়ানডে ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি তুলে নিলেও, ৬৯ রানে থেমে যান বাবর। সেঞ্চুরির পর বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে পারেননি ইমাম। ৮টি চারে ১১৬ বলে ১০১ রান করেন তিনি।
পরবর্তীতে মোহাম্মদ হাফিজের ৪৫ বলে ৫২, শোয়েব মালিকের ২৭ বলে ৩১ ও ইমাদ ওয়াসিমের ২৩ বলে অপরাজিত ৪৩ রানে ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ৩১৭ রানের বড় সংগ্রহ পায় পাকিস্তান। দক্ষিণ আফ্রিকার ডেল স্টেইন ও কাগিসো রাবাদা ২টি করে উইকেট নেন।
জবাবে শুরুটা ভালোই ছিলো দক্ষিণ আফ্রিকার। ৫৩ রানের উদ্বোধণী জুটি গড়েন দুই ওপেনার কুইন্টন ডি কক ও হাশিম আমলা। তবে ৭৯ রানের বিদায় নেন দু’জনই। ডি কক ৩৩ ও আমলা ২৫ রান করেন।
তাদের বিদায়ের পর দলের ইনিংসে সামনে নিয়ে গেছেন রেজা হেনড্রিকস ও অধিনায়ক ফাফ ডু- প্লেসিস। তৃতীয় উইকেটে ১০৮ রান জড়ো করার পর বৃষ্টির কারণে ম্যাচটি বন্ধ হয়ে যায়। এসময় ৩৩ ওভারে ২ উইকেটে ১৮৭ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকা। পরবর্তীতে বৃষ্টি আইনে জয় পায় দক্ষিণ আফ্রিকাই। হেনড্রিকস ৯০ বলে ৮৩ ও ডু-প্লেসিস ৪২ বলে ৪০ রান করেন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
পাকিস্তান : ৩১৭/৬, ৫০ ওভার (ইমাম ১০১, বাবর ৬৯, স্টেইন ২/৪৩)।
দক্ষিণ আফ্রিকা : ১৮৭/২, ৩৩ ওভার (হেনড্রিকস ৮৩*, ডু-প্লেসিস ৪০, হাসান ১/৩৩)।
ফল : দক্ষিণ আফ্রিকা বৃষ্টি আইনে ১৩ রানে জয়ী।
ম্যাচ সেরা : রেজা হেনড্রিকস (দক্ষিণ আফ্রিকা)।
সিরিজ : পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা।