কার্ল মার্ক্সের সমাধিতে হামলা

মার্ক্সবাদের প্রবক্তা দার্শনিক কার্ল মার্ক্সের সমাধিতে হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। তারা সমাধির ওপর নির্মিত স্মারক স্তম্ভটির বেশ ক্ষতি করেছে। সমাধিক্ষেত্রটির দেখাশোনার দায়িত্বে থাকা ফ্রেন্ডস অব হাইগেট সেমিট্রি ট্রাস্টের প্রধান সোমবার পুলিশের কাছে এ তথ্য জানান। তাঁর ধারণা, সুনির্দিষ্টভাবেই সমাধিটিতে হামলা চালানো হয়েছে।

জার্মান দার্শনিক কার্ল মার্ক্স ১৮৪৯ সালে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য লন্ডনে যান। ১৮৮৩ সালে ৬৪ বছর বয়সে তিনি সেখানেই মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর মৃতদেহ উত্তর লন্ডনের হাইগেট সেমিট্রিতে সমাহিত করা হয়। পরে ১৯৫৬ সালে গ্রেট ব্রিটেন কমিউনিস্ট পার্টির পক্ষ থেকে সমাধিটির ওপর ১২ ফুট উচ্চতার গ্রানাইট পাথরের একটি স্তম্ভ নির্মাণ করা হয়। যার ওপর বসানো হয় কার্ল মার্ক্সের একটি ব্রোঞ্জের মূর্তি।

ফ্রেন্ডস অব হাইগেট সেমিট্রি ট্রাস্টের প্রধান ইয়ান ডানগাভেল জানান, সমাধির ওপর নির্মিত স্তম্ভটিতে কার্ল মার্ক্সের ও পরিবারের অন্য সদস্যদের নাম লেখা রয়েছে। সেখানেই লোহাজাতীয় বস্তুর সাহায্যে বারবার আঘাত করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, হামলার ওই ঘটনা দেখে মনে হচ্ছে ‘সমাধিক্ষেত্রে থাকা অন্য কবরগুলোকে নয় বরং কার্ল মার্ক্সের সমাধিকে সুনির্দিষ্টভাবে লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়েছে।’

ইয়ান ডানগাভেল জানান, আঘাতের কারণে সমাধিতে থাকা কার্ল মার্ক্সের স্ত্রীর মৃত্যুর তারিখ এবং তাঁদের নাতি হ্যারি লংগুয়েটের নাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। হ্যারি মাত্র চার বছর বয়সে মারা যায়। তিনি আরো বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে এই ধরনের হামলার ঘটনায় খুবই বিরক্ত। বিশেষ করে কার্ল মার্ক্সের সমাধিতে লোহা দিয়ে হামলার ঘটনা প্রায়ই ঘটে চলেছে।’

কার্ল মার্ক্সের সমাধি যুক্তরাজ্যে গ্রেড-ওয়ান তালিকাভুক্ত ঐতিহাসিক স্থান। এর অর্থ ঐতিহাসিক এই স্থানটিকে ঐতিহ্য হিসেবে অবশ্যই রক্ষা করতে হবে ব্রিটেন সরকারকে।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।