বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে বয়কটের আলোচনা

সবকিছু ঠিক থাকলে ১৬ জুন ওল্ড ট্রাফোর্ডে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ। বিশ্বকাপের এই ম্যাচ ঘিরে এখনই দারুণ উৎসাহ সবার। কিন্তু প্রথম বাক্যের সবকিছু ঠিক থাকলে শব্দত্রয়ী এখন কিছুটা হলেও অনিশ্চয়তা তৈরি করেছে। সম্প্রতি কাশ্মীরে ঘটে যাওয়া সন্ত্রাসী হামলায় ভারতের ৪০ জন আধা সামরিক নিরাপত্তাকর্মী নিহত হওয়ার পর ভারতজুড়ে পাকিস্তানবিরোধী ক্ষোভ চলছে। রাজনীতি, অর্থনীতি, বিনোদন ও সংস্কৃতিজগৎ—সব জায়গায় চলছে পাকিস্তান-বয়কট। এর মধ্যে দাবি উঠেছে, বিশ্বকাপে ভারত যেন পাকিস্তানের বিপক্ষে না খেলে।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা বলেছেন, সরকার যদি নির্দেশ দেয়, বোর্ড বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি বয়কট করতে রাজি। আজ সংবাদ সংস্থা এএনআইকে ওই কর্মকর্তা বলেছেন, ‘বিশ্বকাপের ব্যাপারটি (পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলা) কী হবে, সেটা আরও পরে বোঝা যাবে, যখন বিশ্বকাপ আরও কাছাকাছি সময়ে চলে আসবে। এতে আইসিসির কিছুই করণীয় নেই। সরকারের যদি কখনো মনে হয় যে আমাদের ম্যাচটি খেলা উচিত হবে না, আমরা খেলব না।’

বিশ্বকাপের এবারের ফরম্যাট এমনভাবে করা হয়েছে, অংশ নিতে চলা ১০ দল প্রত্যেকে প্রত্যেকের বিপক্ষে খেলবে। এ নিয়ে আইসিসির আসলেই কিছু করার নেই। এই বাস্তবতা মনে করিয়ে দিয়ে ওই কর্মকর্তা আরও বলেছেন, ‘সরকার না চাইলে আমরা অবশ্যই খেলব না। তবে ম্যাচটি বয়কট করলে পাকিস্তান পুরো পয়েন্ট পেয়ে যাবে। ধরুন ফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে যদি ম্যাচ পড়ে, আমরা না খেললে ওরা বিশ্বকাপই জিতে যাবে।’

বিষয়টি নিয়ে বিসিসিআই এখনো আইসিসির সঙ্গে কথা বলেনি বলেও জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তা। আইসিসি ২৭ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ে বৈঠকে বসছে। সেখানে বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচটি নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা আছে। গৌতম গম্ভীর, হরভরজন সিংয়ের মতো সাবেক ক্রিকেটাররা এরই মধ্যে পাকিস্তানের সঙ্গে অবশিষ্ট সব ক্রীড়া সম্পর্কও ছিন্ন করার পক্ষে কথা বলেছেন। ওই সন্ত্রাসী হামলার দায় স্বীকার করেছে জইশ-ই-মোহাম্মদ। এই সন্ত্রাসী সংগঠনটিকে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা মদদ দেয় বলে ভারত সব সময়ই দাবি করে আসছে।

সব অঙ্গন থেকেই এই সন্ত্রাসী হামলাকে নিন্দা জানানো হচ্ছে। এর আঁচ পড়েছে বলিউডে। বলিউডে কাজ করা পাকিস্তানি তারকাদের বহিষ্কার করার দাবি আরও জোরালো হয়েছে। ক্রিকেটে দুই দেশের সম্পর্ক আগে থেকেই খারাপ। দুই দল কেবল আইসিসি বা এসিসি আয়োজিত টুর্নামেন্টেই অংশ নেয়। এবার দাবি উঠেছে বিশ্বকাপের ম্যাচ বয়কট করার।

তবে ভারতের সাবেক ক্রিকেটার ও উত্তর প্রদেশের কেবিনেট মন্ত্রী চেতন চৌহান মনে করেন, বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে বয়কট করা সহজ হবে না ভারতের জন্য, ‌‘সরকার বিসিসিআইকে নির্দেশনা দিতেই পারে। তবে প্রতিটা টুর্নামেন্টেরই নিজস্ব কিছু নিয়ম আছে। বিশ্বকাপে অনেকগুলো দল অংশ নেয়। আমরা যদি বিশ্বকাপই বয়কট করি কিংবা পাকিস্তানের বিপক্ষে না খেলি, দুই কি তিন বছরের জন্য আমাদের দলকে নিষিদ্ধ করা হতে পারে। এই টুর্নামেন্ট যদি পাকিস্তানে আয়োজিত হতো, আমি জোর গলায় বলতাম ভারতের যাওয়ার দরকার নেই। কিন্তু এই টুর্নামেন্ট হবে ইংল্যান্ড, আর সেটা আট কি দশ বছর আগে থেকে ঠিক করা হয়েছে।’

আইসিসি গভীর উদ্বেগের সঙ্গে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে বলে জানিয়েছে।