বিমান ছিনতাইকারীর ছবি প্রকাশ

চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজ ছিনতাইয়ের চেষ্টাকারী অস্ত্রধারীর মৃত্যু হয়েছে। সেনাবাহিনীর বিশেষ কমান্ডো টিমের সঙ্গে র‌্যাব, পুলিশের সম্মিলিত অভিযানে ওই অস্ত্রধারীর মৃত্যু হয়। মৃত্যুর পর শাহ আমানত বিমানবন্দরের রানওয়েতে পড়েছেল তার মৃতদেহ।

রোববার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাত পৌনে ৯টায় চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মতিউর রহমান এ প্রসঙ্গে ব্রিফিং করেন। এসময় তিনি জানান, ছিনতাইকারীকে নিবৃত্ত করার জন্য প্যারা কমান্ডো বাহিনী প্রথমে তাকে আত্মসমর্পণের আহ্বান জানায়। কিন্তু ছিনতাইকারী সেই আহ্বান প্রত্যাখ্যান করে আক্রমণাত্মক হওয়ার চেষ্টা করে। এসময় স্বাভাবিক অ্যাকশনে যায় প্যারা কমান্ডো। তখন গুলিতে প্রথমে সে আহত হয় ও পরে মারা যায়।

মতিউর রহমান আরও জানান, ‘অভিযান চালিয়েছেন হলি আর্টিজান রেস্তোঁরায় জঙ্গিদের বিরুদ্ধে অভিযানের নেতৃত্বে থাকা প্যারা কমান্ডার ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্স কর্নেল মো. এম এম ইমরুল হাসান।

ছিনতাইকারীর বয়স ২৫ থেকে ২৬ বছর উল্লেখ করে মেজর জেনারেল মতিউর রহমান জানান, ‘তাকে দেখে প্রথমে বিদেশি বলে মনে করেন পাইলট। তবে তিনি প্রকৃতপক্ষে বাংলাদেশী। তার সঙ্গে একটি পিস্তল ছিল।’