সিলেটকে বিদায় করে ঢাকাকে চাপে রাখলো রাজশাহী

স্টাফ রিপোর্টার

সিলেটকে বিদায় করে দিয়ে প্লে-অফে নিজেদের সম্ভাবনা ভালোভাবেই টিকিয়ে রাখলো রাজশাহী। চট্টগ্রাম পর্বের শেষ ম্যাচে ৫ উইকেটের জয় তুলে নিল রাজশাহী। লিগ পর্বে নিজেদের সবগুলো ম্যাচ খেলে ১২ পয়েন্ট তুলে রাখলো তারা। এর ফলে ১০ পয়েন্ট সংগ্রহ করা ঢাকাকে চাপে রাখলো তারা। সুপার ফোরে জায়গা করে নিতে বাকি দুই ম্যাচই জিততে হবে ঢাকাকে। এক ম্যাচ হেরে গেলেই রান রেটের মারপ্যাঁচে পড়তে হবে সাকিব আল হাসানদের।

রাজশাহীর লক্ষ্যটা ছিল বড়। শুরুটাও খুব একটা ভালোও হয়নি রাজশাহীর। ওপেনার জাকির হাসানের পর ব্যর্থ হন শাহরিয়ার নাফিসও। কিন্তু রায়ান টেন ডসকেটকে সঙ্গে নিয়ে দলকে দাপুটে জয়ের পথে নিয়ে জান ল্যরি ইভান্স। মাত্র ১৮ বলে ৪২ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে দলকে জয়ের বন্দরে রেখে সাজঘরে ফেরেন ডসকেট। ইভান্স খেলেন ৩৬ বলে ৭৬ রানের ইনিংস। বাকি পথটুকু পাড়ি দিতে কষ্ট হয়নি সৌম্য সরকার এবং ক্রিস্টিয়ান জনকারের।

এর আগে রাজশাহী কিংসের সামনে ১৮৯ রানের বড় লক্ষ্য দেয় সিলেট সিক্সার্স।

টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় সিলেট। ওপেনার লিটন দাসকে হারিয়ে শুরুতেই ধাক্কা খায় তারা। জেসন রয়ও বেশিক্ষণ স্থায়ী হননি। ২৯ রানে আফিফ হোসেন ফিরে যাওয়ার পর নিকোলাস পুরানের সঙ্গে জুটি বেঁধে দলকে এগিয়ে নেন সাব্বির রহমান। ৩৯ বলে ৪৫ রানের হিসেবি ইনিংস খেলে কামরুল ইসলামের শিকারে পরিণত হন সাব্বির। এরপর চলতি বিপিএলে দ্বিতীয় দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড গড়েন পুরান। ২১ বলে অর্ধশতক করা পুরান ৭৬ রানে অপরাজিত থাকেন।

স্কোর:
সিলেট সিক্সার্স: ১৮৯/৫ (২০)
লিটন দাস ১০ (৬)
আফিফ হোসেন ২৯ (২৫)
জেসন রয় ১৩ (৮)
সাব্বির রহমান ৪৫ (৩৯)
নিকোলাস পুরান ৭৬* (৩১)
মোহাম্মদ নওয়াজ ০ (১)
অলক কাপালি ১০* (১০)

বোলার:
আরাফাত সানি ৪-০-৪৮-১
মেহেদী হাসান ৪-০-৩২-১
কামরুল ইসলাম ৪-০-৩০-২
মোস্তাফিজুর রহমান ৪-০-৩১-১
সৌম্য সরকার ৪-০-৪৭-০

রাজশাহী কিংস:
জনসন চার্লস ৩৯ (২৬)
জাকির হাসান ৭ (৭)
শাহরিয়ার নাফিস ৯ (১৩)
ল্যরি ইভান্স ৭৬ (৩৬)
রায়ান টেন ডসকেট ৪২ (১৮)
ক্রিস্টিয়ান জনকার ৮ (৮)
সৌম্য সরকার ২ (২)

বোলার:
সোহেল তানভীর ৩-০-২৭-২
তাসকিন আহমেদ ৩-০-৩৪-১
ইবাদত হোসেন ৩-০-৩১-১
মোহাম্মদ নওয়াজ ৪-০-৪৩-০
অলক কাপালি ৪-০-৪১-২
নাবিল সামাদ ১-০-১৪-০