রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা চলছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সিলেট প্রতিনিধি

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা চলছে। মিয়ানমারও রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে রাজি। কিন্তু রাখাইনে সে ধরণের পরিবেশ এখনও সৃষ্টি করতে পারেনি দেশটি। শিগগিরই নিরাপদ রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো হবে। এজন্য সার্বিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।


শনিবার দুপুরে সিলেট নগরীর মিরাবাজারে এক অনুষ্ঠান শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।


সকাল থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত মন্ত্রী সিলেট নগরীর দক্ষিণ সুরমার কদমতলীতে ৬৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘সিলেট কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল আধুনিকায়ন’ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন, সিলেট মডেল হাই স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ, মেজরটিলায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান, শামিমাবাদে মইনউদ্দিন মহিলা ডিগ্রি কলেজে ‘আবুল মাল আবদুল মুহিত আইসিটি ভবন’ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেন।


পররাষ্ট্রমন্ত্রী কক্সবাজারের উখিয়ায় জার্মান সাংবাদিকদের উপর রোহিঙ্গাদের হামলার ঘটনাকে ‘দুঃখজনক’ বলে মন্তব্য করেন। বাস টার্মিনাল কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করেছেন। কেউ দুর্নীতি করে পার পাবে না। যারা উন্নয়ন কাজে বাঁধা দেবে তাদেরকে বরদাশত করা হবে না।


মডেল হাইস্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে ড. মোমেন বলেন, অচিরেই সিলেটকে ডিজিটাল নগরী হিসেবে গড়ে তোলা হবে। এ লক্ষ্যে সরকারের আইসিটি মন্ত্রণালয় কাজ শুরু করেছে। সরকার এটা অনুমোদন দিয়েছে। সিলেট নগরীতে ফ্রি ওয়াই-ফাই সেবা দেওয়া হবে। এতে ছেলেমেয়েরা উপকৃত হবে। তারা রেস্টুরেন্টসহ যেখানেই যাবে সেখানে ফ্রি ওয়াই-ফাই ব্যবহার করতে পারবে।


মডেল হাই স্কুলের পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, যুবলীগের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আহমদ আল কবীর।


এর আগে সকাল ১০টায় মন্ত্রী মেজরটিলায় শাহজালাল উচ্চ বিদ্যালয়ে ছাত্রীদের মধ্যে সাইকেল বিতরণ করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সরকার দেশকে সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতিমুক্ত করতে চায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ ব্যাপারে খুবই কঠোর। সকলের আন্তরিক সহযোগিতায় তাঁর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।


অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন প্রধানমন্ত্রী’র সাবেক উপদেষ্ঠা ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, সিলেট সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ।


মইনউদ্দিন মহিলা ডিগ্রি কলেজের অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে মোমেন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমাদের যে মানবসম্পদ আছে তাদেরকে উচ্চ শিক্ষা ও উন্নত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সত্যিকারের সম্পদে পরিণত করতে হবে। শিক্ষিত হয়ে কেউ যেনো বেকার না থাকে সেজন্য শিক্ষা কার্যক্রম ঢেলে সাজানো ও কর্মমুখী শিক্ষায় জোর দেন তিনি। মোমেন বলেন, সরকার প্রশিক্ষণের উপর গুরুত্ব দিচ্ছে। এজন্য পাঁচশ’ কোটি মিলিয়ন ডলারের একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। আমরা চাই, আমাদের দেশ এগিয়ে যাবে, আমরা দেশের জনশক্তিকে কাজে লাগিয়ে টেকসই উন্নয়ন ও উন্নত, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করবো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রণীত সকল রোডম্যাপ বাস্তবায়ন করতে অবকাঠামো, শিক্ষা ও কর্মসংস্থানে জোর দেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।